Header Ads

Xiaomi Redmi Note 5 Ai China Full Honest Review in Bangla After 04 Month Usage.


( আমাদের ইউটিউব চ্যানেল ভিজিট করার আমন্ত্রন, ক্লিক করুন)


প্রথম অংশঃ সাধারন ধারনা ১.২০ সেকেন্ড


২য় অংশঃ ১.২৫ সেকেন্ড থেকে: সরাসরি Test; Battery, Camera , Video test, Games test ; Overall Performance; etc.

শাওমি রেডমি নোট ৫ চায়না ভার্সন।

----------------------------------------------
শাওমিঃ 
শাওমি ফোন মূলত চাইনিজ ভিত্তিক একটি স্মার্টফোন ও গেটজেট কোম্পানি।
বর্তমানে যে কয়টি স্মার্টফোন কোম্পানি সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়  তার মধ্যে অন্যতম শাওমি। বিশেষ করে তরুণ প্রজন্মের কাছে অত্যন্ত জনপ্রিয়।  আর এই জনপ্রিয়তার কারণ নূন্যতম দামে সর্বোচ্চ প্রযুক্তির ব্যবহার।

----------------------------------------------
চায়না/ চাইনিজ ভার্সনঃ 

চায়না নিজ দেশের জন্য যে ভার্সনটি বিশেষ করে তৈরি করে সেটিকে চাইনিজ ভার্সন নামে ডাকা হয়। গ্লোবাল ভার্সন এর সাথে এই ভাষণের মূল পার্থক্য হবে  গুগোল ও প্লে স্টোর অ্যাপস।  আর চাইনিজ ভার্সনে গুগলের কোন অ্যাপস প্রি ইন্সটল থাকে না। আর গ্লোবাল ভার্সন এ যা প্রি ইনস্টল থাকে।
এখন প্রশ্ন হল চাইনিজ ভার্সনে কী গুগলের কোন অ্যাপস ব্যবহার করা যায় না?  উত্তর হল অবশ্যই করা যায়। আপনি ব্লুটুথ এর মাধ্যমে প্রথমে শেয়ার ইট ইন্সটল করে নেবেন।  তারপর প্লে স্টোর এবং গুগোল এর যাবতীয় অ্যাপস গুলো আপনি শেয়ার করে নিবেন। অথবা শুধু প্লে স্টোর টি ইনস্টল করে আপনি এবার যত প্রয়োজন প্লে স্টোর থেকে প্রয়োজনীয় অ্যাপস গুলো ইন্সটল করে নিন। এতে যেমন আপনি দাম অনেক সাশ্রয় করতে পারবেন ।
---------------------------------------------------------------------------



এছাড়া ,
গ্লোবাল থেকে অনেক আগে চাইনিজ ভার্সনে আপডেট আসে। 
শুধু একটি কথা মনে রাখবেন চায়না কখনো তার নিজ দেশের জনগণের জন্য চাইনিজ ভার্সন নামক কোন নিম্ন কোয়ালিটির ভার্সন তৈরি করে না।
তাহলে প্রশ্ন উঠতে পারে চাইনিজ ভার্সন এর দাম কম কেন? 
সে উত্তর দিতে গেলে আপনাদের সামনে এখন মার্কেটিং এবং ইকোনমিক সম্পর্কে বিস্তারিত ব্যাখ্যা দিতে হবে।  আমি অবশ্যই সে দিকে যাব না কারণ আমার এখানকার উদ্দেশ্য সেটি বোঝানোর নয়। 

নোট 5 এর বৈশিষ্ট্য গুলো দেখে নেইঃ 
---------------------------------------------------------------------------
ডিসপ্লেঃ  
5.99 ইঞ্চ এর একটি ফুল এইচডি ডিসপ্লে। গরিলা গ্লাস ইউজ করা হয়েছে কিন্তু কোন ভার্সন ইউজ করা হয়েছে সেটি বলা হয়নি।
---------------------------------------------------------------------------
প্রসেসরঃ 
আমার কাছে ফোন এর সবচেয়ে আকর্ষণীয় দিক হল প্রসেসরটি। স্নাপড্রাগণ ৬৩৬ কারণ প্রসেসর যেটি  আগের ভার্সনগুলো থেকেতে অনেক স্মুথ কাজ করে।  স্ন্যাপড্রাগন এর ডিটেইলস বলা আছে এই ভার্সনটি তে কুইক চার্জ টেকনোলজি ৩ ইউজ করা করা হয়েছে। 
যা কিনা পূর্বের ভার্সন থেকে ২৯ থেকে ৩০ শতাংশ অধিক দ্রুত এবং কার্যকরী। কিন্তু চার্জ এর ক্ষেত্রে  ইউএসবি টাইপ সি না দিয়ে ইউএসবি টাইপ বি ব্যবহার করেছে।
---------------------------------------------------------------------------
বডিঃ 
ফোনটির বডি যথেষ্ট স্টাইলিশ। কিন্তু খুব একটা মজবুত নয় ।য়আপনাকে অবশ্যই ব্যাক কভার এবং স্কিন প্রটেক্টর গ্লাস ব্যবহার করতে হবে। যদি খুব যত্নসহকারে ইউজ করতে পারেন তাহলে ব্যাক কভার ছাড়া ব্যবহার করতে পারেন। হাতি দিলে যথেষ্ট প্রিমিয়াম ফিল হয়।  এছাড়া আরো একটি আকর্ষণীয় দিক হলো ফোনের চারকোনা  কার্ভ করা।
---------------------------------------------------------------------------
জিপিইউঃ 
থাকছে অ্যাড্রিনা ৫০৯। যা দিয়ে আপনি অনায়াসে অনেক হেভি হেভি গেম খেলতে পারবেন।
---------------------------------------------------------------------------
ক্যামেরাঃ 
ফোনটিতে রে ক্যামেরা হিসেবে আছে ১২ এবং  ৫ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা যা কিনা ডুয়েল ক্যামেরা নামে পরিচিত।  আর ফ্রন্ট ক্যামেরা তে আছে ১৩ মেগাপিক্সেলের এর ফ্লাস লাইটসহ ক্যামেরা। ফোনটিতে সামনে ও পিছনে পোর্ট্রেট মোড ক্যামেরা সাপোর্ট করে । যা দিয়ে আপনি দারুন সব ইমেজ ধারণ করতে পারবেন।
---------------------------------------------------------------------------
ভিডিওঃ
স্নাপড্রাগণ ৬৩৬ বলছে এটি ফোরকে রেজ্যুলুশনের ভিডিও সাপোর্ট করে,  কিন্তু শাওমি এখন পর্যন্ত এই ফোনটিতে ফুল এইচডি প্লাস পর্যন্ত আপডেট দিয়েছে হয়তো সামনের আপডেটে ফোর কে যুক্ত করে দিবে। আপনি প্লে স্টোর থেকে ওপেন ক্যামেরা নামক একটি প্রেমের অ্যাপস নামিয়ে ফোরকে রেজ্যুলুশনের ভিডিও করতে পারেন।
---------------------------------------------------------------------------
রেম ও রোমঃ
৩-৩২ ও ৪-৬৪  দুটি ভার্সন আছে।   আর মাইক্রো এইচডি ১২৮ জিবি পর্যন্ত সাপোর্ট করে।
---------------------------------------------------------------------------
সিম স্লটঃ
ফোনটিতে একসাথে ২ টি সিম অথবা একটি সিম একটি মেমোরি কার্ড ব্যবহার করা যায়।
আরেকটি অনন্য বৈশিষ্ট্য হলো কোন সিম একসাথে ফোরজি সাপোর্ট করে।
---------------------------------------------------------------------------
চার্জঃ  
 ৪ হাজার মিলি এম্পিয়ার এর একটি বড় ব্যাটারি আছে যা আপনাকে অনায়াসে ১০ থেকে ১২ ঘন্টা একনাগাড়ে ব্যাকআপ দিবে। অর্থাৎ আপনি যদি হ্যাভি  ইউজার হোনও আপনাকে অন্তত এক নাগাড়ে দুইদিন ব্যাকআপ দিবে।  ফোনটি সম্পূর্ণ চার্জ হতে কমপক্ষে দুই ঘন্টা সময় নেয়।
---------------------------------------------------------------------------

সেন্সরঃ
---------------------------------------------------------------------------
 এত কম বাজেটের ফোনে এত বেশী সেন্সর আছে বলে আমার জানা নেই । সাধারণ সেন্সরসহ
ফোনটিতে কম্পাস, স্টেপ কাউন্টার সেন্সর ব্যবহার করা হয়েছে।
--------------------------------------------------------------------------- 
ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরঃ
ফোনটির ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর অনেক দ্রুত কাজ করে। চাইনিজ ভার্সনে আসে ফেস আনলক অপশনটিও।
---------------------------------------------------------------------------
ফোনের অন্যান্য দিকঃ
চার্জিং এবং হেডফোনের মাইক আছে নিচের দিকে।    উপরের দিকে আছে সেন্সর।  আর ফোন এর ডান দিকে আছে পাওয়ার এবং ভলিউম বাটন।
---------------------------------------------------------------------------
সর্বশেষঃ 
আমি ফোনটির দাম এবং পারফরম্যান্সের যথেষ্ট সন্তুষ্ট। আর সন্তুষ্ট না হয়ে উপায় নেই কারণ  এই দামের মধ্যে এত ভাল মানের ফোন আসা করিনি।
---------------------------------------------------------------------------
---------------------------------------------------------------------------


1 টি মন্তব্য:

Blogger দ্বারা পরিচালিত.