Header Ads

জিমেইলকে সাজিয়ে নিন নিজের মত করে । Most Important Gmail Settings You Must Use In Bangla.


উপরের ভিডিও টিউটোরিয়ালটি দেখলে আপনি কি শিখতে পারবেন?

-- জিমেইল এর সাধারন প্রয়োজনীয় সেটিংস গুলো
--  জিমেইল এর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করণ।
---  পাঠানো মেইল কিভাবে ফেরত আনা যায়।
-- এছাড়াও জিমেইল এর কিছু দারুণ ব্যবহার।

জিমেইল মানে কোন মেইল সেন্ড করা এবং মেইল রিড করা নয়।

কিছু সাধারন আলোচনাঃ

আমরা প্রায় ৯০ ভাগেরও উপরে জিমেইল ব্যবহারকারীরা জিমেইলকে শুধু মেইল করা এবং মেইল পাঠানো মধ্যে সীমাবদ্ধ।
কিন্তু কখনো ভেবে দেখেছেন কি এই জিমেইলের আছে অনেক সেটিংস এবং অনেক নিরাপত্তা এবং আরো অনেক দারুন দারুন কাস্টমাইজড ব্যবস্থা।

সেগুলোর মধ্যে কয়েকটি উল্লেখ করছি সব গুলো উল্লেখ করা এখানে সম্ভব নয়।

*যেমন জিমেইল এর থিমটি পরিবর্তন করা যায়। 
সেটিই উপরের টিউটোরিয়ালের প্রথমে দেখানো হয়েছে।
* তারপরে জিমেইলে যেয়ে চ্যাটিং অপশন টি সেটি সবারই কিন্তু বামদিকে নিচের অবস্থান করে। যেখানে স্পেস কম এর কারণে অল্প কয়েকটি চ্যাটিং আইডি দেখায়।
কিন্তু এটি ডান দিকে পুরো জিমেইল জুড়ে আনার ব্যবস্থা আছে।

* তারপরে আপনি যদি চ্যাটিং টি বন্ধ রাখতে চান সেটির ও ব্যবস্থা আছে।

* সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটি সেটিংস হল টু স্টেপ ভেরিফিকেশন এর মাধ্যমে জিমেইলের সুরক্ষা নিশ্চিত করা।

 যেটি সম্পর্কে আলাদা আর একটি ভিডিও আছে। 
এই টু স্টেপ ভেরিফিকেশন এ কাজ করে লগইন করার সময় ওটিপি কোড এর মাধ্যমে। অর্থাৎ লগইন করার সময় আপনার ফোনে একটি ওটিপি কোড আসবে। সেটি দিলে পরে আপনার জিমেইলে লগইন করতে পারবেন যদিও পাসওয়ার্ড দিয়েছেন।

* এছাড়াও জিমেইলের পাসওয়ার্ড অনেকেই পরিবর্তন করতে। উক্ত ভিডিও টিউটোরিয়াল দিতে সেটিও দেখানো হয়েছে।

*  এছাড়া মেইল গুলো কে কি ভাবে ভাগ ভাগ করে রাখতে হয়। যেমন সোশ্যাল মিডিয়ার মেইল নোটিফিকেশনগুলো একদিকে থাকবে, প্রাইমারি আপডেট প্রমোশন ইত্যাদি নামক গুলো গুলো আলাদা আলাদা হেডিং এ থাকবে।

যেটি আপনার সুবিধার জন্য প্রয়োজন হতে পারে কারণ ক্যাটাগরি ভিন্ন হলে খুঁজতে সুবিধা হবে।

* ইনবক্স, ড্রাফ্ট , সেন্ড মেইল, আউট বক্স, স্পাম বক্সইত্যাদি অপশন গুলো কেও আপনি ইচ্ছা করলে হাইট অথবা শো করিয়ে রাখতে পারেন।

* এছাড়া জিমেইলে অনেক সময় মেইল সেন্ড করার পরে দেখি যে ভুল মেইল সেন্ট হয়ে গিয়েছে। 
তখন মেইলটি ফেরত আনার কোন উপায় নাই। কিন্তু জিমেইল এর একটি সেটিংস আছে যার মাধ্যমে আপনি ৩০ পর্যন্ত সময় পাবেন মেইলটি ফেরত আনতে।

হোক না ৩০ সেকেন্ড কর্পোরেট লেভেলের ৩০ সেকেন্ডে অনেক কিছু।

কোন মন্তব্য নেই

Blogger দ্বারা পরিচালিত.